সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ০৮:১৮ অপরাহ্ন

পশ্চিমবঙ্গে বুধবার মন্ত্রিসভার রদবদল, পাঁচ-ছ’জনের থাকবে না মন্ত্রিত্ব

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : আগস্ট ১, ২০২২

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মন্ত্রিসভায় রদবদল হবে বুধবার বিকেলে। সোমবার দুপুরে নবান্নে মন্ত্রিসভার বৈঠক ডেকেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠক শেষে মমতা সাংবাদিক বৈঠক করেন ১২টা ৪৯ মিনিট নাগাদ। সেখানেই তিনি জানিয়ে দেন, মন্ত্রিসভার রদবদল হচ্ছে। বুধবার একটি ‘ছোট রিশাফল’ করবেন তিনি। সেখানেই ফাঁকা থাকা দফতরগুলির দায়িত্ব বণ্টন করা হবে। তবে একই সঙ্গে মমতা জানিয়েছেন, কয়েক জন মন্ত্রীকে দলের কাজেও ব্যবহার করতে চান তিনি। সেক্ষেত্রে ওই মন্ত্রীদের মন্ত্রিত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হতে পারে বলে অনুমান।

সোমবার দুপুরে মন্ত্রিসভার বৈঠক এগিয়ে দুপুর সাড়ে ১২টায় করার কথা জানিয়েছিল নবান্ন। বৈঠক শেষে মমতা সাংবাদিক বৈঠকে এলে তাঁকে প্রশ্ন করা হয়েছিল মন্ত্রিসভায় কি রদবদল হচ্ছে? কারণ তার আগে পর্যন্ত রাজনৈতিক মহলে জল্পনা ছিল সোমবারই মন্ত্রিসভায় ঢেলে সাজাতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। এমনকি নতুন মন্ত্রী হিসেবে কারা দায়িত্ব গ্রহণ করতে পারেন, তারও একটি সম্ভাব্য তালিকা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছিল। সেই আলোচনায় সম্ভাব্য মন্ত্রী হিসেবে উঠে আসছিল বাবুল সুপ্রিয় এমনকি পার্থ ভৌমিকের নামও। মমতাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, মন্ত্রিসভার বদল দরকার। কারণ তাঁর একার পক্ষে এতগুলো দফতরের ভার সামলানো সম্ভব নয়। কিন্তু সেই বদল সোমবারের বৈঠকে হয়নি। মমতা বলেন, ‘‘আজ নয়, পরশু একটা ছোট রিশাফল করব।’’

বস্তুত এই বক্তব্যে মমতা এ কথাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন, তাঁর মন্ত্রিসভা ঢেলে সাজানো নিয়ে যে জল্পনা চলছিল, তা ঠিক নয়। তিনি মন্ত্রিসভায় ছোট রদবদল করবেন। তবে এই রদবদলে কারা জায়গা পাবে কারা পাবে না, কারও মন্ত্রিত্ব যাবে কি না, সে ব্যাপারে স্পষ্ট করে কিছু জানাননি মমতা। তিনি বলেন, ‘‘চার-পাঁচ জনকে নতুন দায়িত্ব দেওয়া হবে। কয়েক জনকে দলের কাজে লাগানো হবে।’’

সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন এবং ক্রেতা সুরক্ষা ও সমবায় দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত দুই মন্ত্রী – সুব্রত মুখোপাধ্যায় ও সাধন পাণ্ডে প্রয়াত হয়েছেন। অন্যদিকে দলটি সিনিয়র লিডার ও শিল্প, তথ্য প্রযুক্তি এবং পরিষদীয়, সব মিলিয়ে তিন দপ্তরের মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় নিয়োগ কেলেঙ্কারিতে ইডি হেফাজতে যাওয়ার পরে মন্ত্রীত্ব খুইয়েছেন।

এমন অবস্থায় নতুন করে মন্ত্রিসভা উঠছিল তৃণমূল কংগ্রেসের অন্দরে, যদিও এদিন তা নাকচ করে দিয়ে মমতা বলেন, মন্ত্রিসভা ভেঙে নতুন করে কিছু করার পরিকল্পনা নেই। ছোট কিছু বদল হবে। পাঁচ-ছয় জন নতুন মুখ আসতে পারে। তিন-চার জনকে মন্ত্রিত্ব থেকে সরিয়ে দল, সংগঠনের কাজে লাগানো হবে।

এছাড়া, পশ্চিমবঙ্গের পাঁচ জেলা ভেঙে নতুন করে আরও সাতটি জেলা তৈরির ঘোষণা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। এর ফলে এবার পশ্চিমবঙ্গে জেলার সংখ্যা ৩০-এ দাঁড়াবে। বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গে ২৩টি জেলা রয়েছে।

প্রশাসনিক কাজের সুবিধা এবং সাধারণ মানুষের সুবিধার কথা মাথায় রেখে আগেই ৪টি নতুন জেলা কালিম্পং, আলিপুরদুয়ার, পশ্চিম বর্ধমান, ঝাড়গ্রাম জেলা তৈরি করেছিল মমতা ব্যানার্জী।

প্রশাসনিক কাজকর্মের সুবিধার জন্য ফের বড় জেলাগুলিকে ছোট কয়েকটি জেলায় ভাঙার কথা আগেই জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনিক কাজের সুবিধার জন্য আগেই পুলিশ জেলা হিসেবে জেলাগুলিকে ভাগ করে রেখেছিল কোনটি মমতা ব্যানার্জি। এবার প্রশাসনিক জেলা গঠনের ঘোষণা দিলেন তিনি।

ইতিমধ্যেই পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের তরফে দিল্লির কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে অতিরিক্ত ইন্ডিয়ান অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস বা IAS, ইন্ডিয়ান পুলিশ সার্ভিস বা IPS অফিসারদের পাঠানোর আবেদনও জানিয়েছিলেন বলেও এদিন জানান মমতা। এদিন নতুন যে ৭ জেলার নাম ঘোষণা করেন মমতা।

নতুন ঘোষিত জেলা হলো- নদিয়া জেলা ভেঙে রানাঘাট জেলা, উত্তর ২৪ পরগনা জেলা ভেঙে ইছামতি ও বসিরহাট জেলা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা ভেঙে সুন্দরবন জেলা, মুর্শিদাবাদ জেলা ভেঙে বহরমপুর ও কান্দি জেলা এবং বাঁকুড়া জেলা ভেঙে হয়েছে বিষ্ণুপুর জেলা।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ