শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন

গ্রেপ্তারের মুখোমুখি ইমরান খান

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : আগস্ট ২০, ২০২২

নিষিদ্ধ তহবিল মামলায় তদন্ত কমিটির সামনে অনুপস্থিত থাকলে কিংবা মামলা সংক্রান্ত নোটিশের জবাব দিতে ব্যর্থ হলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে গ্রেপ্তার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তানের ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি (এফআইএ)।

দ্য নিউজের বরাতে গণমাধ্যম ডেইলি স্টেটম্যান জানায়, পার্টির তহবিল এবং অ্যাকাউন্টের বিবরণ পেতে ইমরান খানকে গ্রেপ্তারে আইনানুযায়ী আদালত থেকে অনুমতি পাবে সংস্থাটি।

সূত্র জানায়, তিনটি নোটিশ জারির পর পিটিআই প্রধানকে গ্রেপ্তারের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে। এর আগে শুক্রবার খানকে দ্বিতীয় নোটিস জারি করে এফআইএ।

দ্য নিউজ জানিয়েছে, গেল ১০ আগস্ট পার্টির তহবিল এবং অ্যাকাউন্টের বিবরণ দেওয়ার জন্য প্রথম নোটিস জারি করে এফআইএ। তবে সে নোটিস পেয়েও এফআইএ তদন্ত দলের সামনে উপস্থিত হননি ইমরান খান।

সূত্রের বরাতে জানা গেছে, এফআইএ পিটিআই-এর পাঁচটি কোম্পানির সন্ধান করা হয়েছে যা পাকিস্তানের নির্বাচন কমিশন (ইসিপি) এবং এফবিআরের কাছে জমা দেয়া প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়নি।

এই কোম্পানিগুলো যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, যুক্তরাজ্য এবং বেলজিয়ামে অবস্থিত। ইতোমধ্যে এফআইএ এগুলোর অডিট রিপোর্ট সংগ্রহ করেছে বলে জানিয়েছে দ্য নিউজ।

সূত্র জানায়, এফআইএ ব্যাংকিং সার্কেল বারবার ইমরান খানকে ওসব কোম্পানির ব্যাংক অ্যাকাউন্টের বিশদ বিবরণ দিতে বলেছে। কিন্তু ইমরান খান বলেছেন যে, তিনি এফআইএ’র কাছে জবাবদিহি করতে পারেন না বা সংস্থাটি তাকে কোনো তথ্য সরবরাহ করতে বাধ্য করতে পারে না।

এমনকি পিটিআই প্রধান ইমরান খান দুদিনের মধ্যে নোটিস প্রত্যাহার না করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য এফআইএকে হুমকিও দিয়েছিলেন।

অন্যদিকে ইমরান খানকে দোষী প্রমাণ করার জন্য যথেষ্ট প্রমাণ সংগ্রহ করা হয়েছে বলে দাবি করেছে এফআইএ। চলতি আগস্টেই ইমরান খানকে তৃতীয় এবং চূড়ান্ত নোটিস দেয়া হবে বলে জানা গেছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ