বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০১:২৬ পূর্বাহ্ন

আসাম ও মেঘালয়ে বন্যা ও ভূমি ধস: নিহত বেড়ে ৬২

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : জুন ১৯, ২০২২
আসাম ও মেঘালয়ে বন্যা ও ভূমি ধস: নিহত বেড়ে ৬২

টানা ভারী বর্ষণে ভারতের আসাম ও মেঘালয়ের বন্যা পরিস্থিতি আরও অবনতি হয়েছে। দুই রাজ্যে মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬২ জনে। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আসামে মারা গেছে ১৭ জন।

ভারতের আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, শনিবার ১৪৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড হয়েছে রাজ্যটিতে।

সেখানে নদ-নদীর পানি বিপৎসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। লোকালয়ে পানি ঢুকে জনজীবনকে বিপর্যস্ত করে তুলেছে। ৩২ টি জেলার ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা ৩০ লাখে পৌঁছেছে। উপায় না পেয়ে আশ্রয়কেন্দ্রের দিকে ছুটছেন বানভাসী মানুষ। পরিস্থিতি মোকাবিলায় সেনাবাহিনীর সাহয়তা চাওয়া হয়েছে দুই রাজ্যে। শুধু আসামেই ৪ হাজারের বেশি গ্রাম প্লাবিত। দেড় লাখের বেশি মানুষকে ৫১৪টি আশ্রয় কেন্দ্রে নেয়া হয়েছে। নষ্ট হয়ে গেছে অনেক সেতু ও সড়ক।

এদিকে, মেঘালয়ের মাওসিনরাম ও চেরাপুঞ্জিতেও এবার অতি বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টি থেকে সৃষ্ট বন্যায় যারা প্রাণ হারিয়েছেন তাদের প্রত্যেক পরিবারকে ৪ লাখ রুপি সহায়তার ঘোষণা দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমা।

অন্যদিকে, দেশটির আরেক রাজ্য ত্রিপুরায় গত শুক্রবার থেকে অব্যাহত রয়েছে বৃষ্টি। সেখানকার স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, এখনও কোনও মৃত্যুর খবর না পাওয়া গেলেও গৃহহীন হয়েছেন ১০ হাজার মানুষ। গত ৬০ বছরের মধ্যে রাজ্যটির রাজধানী আগারতলায় তৃতীয় সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

লোকালয়ে পানি ঢুকে পড়ায় বিপাকে বহু মানুষ। আকস্মিক বন্যার কারণে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করেছে প্রশাসন।

বন্যা পরিস্থিতি সম্পর্কে জানতে আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমান্ত বিশ্বশর্মার সাথে টেলিফোনে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ক্ষতিগ্রস্তদের সার্বিক সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

গত বুধবার পর্যন্ত আসাম ও মেঘালয়ে স্বাভাবিকের চেয়ে ২৭২ মিলিমিটার অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত হয়েছে। এ সপ্তাহ শেষ না হওয়া পর্যন্ত রাজ্য দুটিতে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে ভারতীয় আবহাওয়া বিভাগ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ