রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৮:২৯ পূর্বাহ্ন

আন্তর্জাতিক ফুটবলে ফিফার নিষেধাজ্ঞার মুখে ভারত

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : জুন ২১, ২০২২

মহানবী নিয়ে বিজেপি মুখপাত্র নুপুর শর্মার মন্তব্যের জেরে মুসলিম বিশ্বে কোনঠাসা ভারত। যার রেশ না কাটতেই এবার আন্তর্জাতিক ফুটবলে নিষেধাজ্ঞার শঙ্কায় প্রতিবেশি দেশটি। নেপথ্যে অল ইন্ডিয়া ফুটবল ফেডারেশনে নির্বাচন জটিলতা।

২০২০ সালের ডিসেম্বরে শেষ হয় তৎকালীন সভাপতি প্রফুল প্যাটেলের তৃতীয় মেয়াদের দায়িত্ব। নিয়ম অনুযায়ী নির্বাচনের মাধ্যমেই পরবর্তী সভাপতি খুঁজে নেয়ার কথা সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের। কিন্তু সাংবিধানিক জটিলতার দোহাই দিয়ে সভাপতির চেয়ার আকড়ে থাকেন প্যাটেল।

সুরাহা না হওয়ায় শেষ পর্যন্ত বিষয়টি গড়ায় ভারতের সুপ্রিম কোর্টে। প্যাটেলকে সরিয়ে তিন সদস্য পরিচালক কমিটি নিয়োগ দেয় দেশটির সর্বোচ্চ আদালত। জুনের মধ্যেই ফেডারেশন নির্বাচন আয়োজন করাই ছিল যাদের মূল কাজ। কিন্তু শোনা যাচ্ছে নির্বাচন গড়াতে পারে সেপ্টেম্বর নাগাদ।

মূলত স্বাধীন ফুটবল ফেডারেশনে কোন সরকার বা সরকারি প্রতিষ্ঠানের হস্তক্ষেপ ফিফার আইনের পরিপন্থি। এআইএফএফের নির্বাচন নিয়ে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের নাক গলানো ভালো চোখে দেখছে না ফিফা। বিষয়টি খতিয়ে দেখতে ভারত সফর আছে বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থার প্রতিনিধি দল।

যদিও সুপ্রিম কোর্টের গঠিত তিন সদস্যের পরিচালনা কমিটির একজন ডক্টর, এস ওয়াই কোরাইশির আশা নির্বাচন ইস্যুতে আন্তর্জাতিক মহলে নিষিদ্ধ হবে না ভারত।

সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের প্রশাসক সদস্য এস ওয়াই কোরাইশি বলেন, দীর্ঘদিন হলো নির্বাচন হচ্ছে না। যা আয়োজন করা খুবই প্রয়োজন ছিলো। তবে আমার মনে হয় না এতে ফিফার কোন অসম্মতি থাকবে। সুপ্রিম কোর্ট আমাদের উপর যে দায়িত্ব দিয়েছে আশা তা পালনে সংস্থাটি আমাদের সহযোগিতা করবে।

কিন্তু ইতিহাস বলছে ফিফার নিষেধাজ্ঞার খুব কাছে ভারত। ফেডারেশনে সরকারের হস্তক্ষেপের কারণে সম্প্রতি নিষিদ্ধ হয়েছিলো কুয়েত, ইন্দোনেশিয়ার মতো দেশগুলো। কয়েক বছর আগে নির্বাচন নিয়ে জটিলতায় একই পরিণতি ভোগ করতে হয়েছিলো চিরশত্রু পাকিস্তানকেও।

শঙ্কা সত্যি হলে কপাল পুড়বে ভারতীয় অধিনায়ক সুনীল ছেত্রীর। অধরাই থেকে যাবে আন্তর্জাতিক ফুটবলে লিওনেল মেসিকে ছাড়িয়ে যাওয়ার স্বপ্ন। ৮৪ গোল করা এই স্ট্রাইকার থেকে মাত্র দুই গোলে এগিয়ে মেসি।

ভারত অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী বলেন, ফুটবলের জন্য যা মঙ্গল তাই হোক। আশা করি ভারত নিষিদ্ধ হবে না। আর হলে শুধু দেশের জন্যই নয় তা আমার জন্যেও হবে বিপর্যয়কর। কেননা এখন আমার বয়স ৩৭। কেউ জানে না কার জন্য কোনটা শেষ ম্যাচ।

বাছাই পর্বে টানা তিন জয়ে ব্যাক টু ব্যাক এশিয়ান কাপের মূল পর্ব জায়গা করে নিলেও তাতে অংশগ্রহণ অনিশ্চিত ভারতের। সমস্যা সমাধানে সবাইকে জেগে উঠার আহবান জানিয়েছেন হেড কোচ ইগোর স্টিমাচ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ