রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১২:২৬ পূর্বাহ্ন

আওয়ামী লীগই দেশের মানুষের ভরসার স্থান : নানক

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : জুলাই ৭, ২০২২

আওয়ামী লীগ সভাপতিমন্ডলীর সদস্য, সাবেক মন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেছেন, যে কোন দুর্যোগ দুর্বিপাকে আওয়ামী লীগই দেশের মানুষের সবচেয়ে বেশি আশা-ভরসার স্থান।
আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার বড় ধিরারাই গ্রামে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরীর উদ্যোগে ও যুক্তরাজ্য কমিউনিটি নেতা আনোয়ার আলীর অর্থায়নে বানভাসী মানুষদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন।
এরআগে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সিলেট বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক ও কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী। বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছেই তারা সিলেট ও সুনামগঞ্জের পাঁচ উপজেলার বানভাসি মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে মানবিক উপহারের চেক বিতরণ করেন। এসময় এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক কোম্পানিগঞ্জ, গোয়াইনঘাট ও সুনামগঞ্জের ৩টি উপজেলার বানভাসি মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে মানবিক উপহারের চেক স্থানীয় নেতৃবৃন্দের কাছে হস্তান্তর করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন খান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এনামুল কবির ইমন, সিলেট -৩ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিবসহ সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।
সিলেটে অবস্থানকালে নেতৃবৃন্দ জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে কয়েকটি উপজেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নির্ধারিত এলাকায় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি অংশগ্রহণ করবেন।
দুপুরে তিনি সিলেটের দক্ষিণ সুরমা ও বালাগঞ্জে সিলেট -৩ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান হাবিরের পক্ষ থেকে ত্রাণ ও ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করেন। এসময় নানক বলেন, স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যার শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী, জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনা সিলেট ও সুনামগঞ্জবাসীর পাশে ছুটে এসেছিলেন। নিজের চোখে মানুষের দুঃখ দুর্দশা দেখে তিনি প্রয়োজনীয় ত্রাণসহায়তা বরাদ্দ দিয়েছেন। সেগুলো সুন্দরভাবে বানভাসি মানুষের হাতে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। বন্যায় ক্ষতিগ্রস্থ ঘরবাড়ি মেরামতের জন্য এখন প্রতিটি পরিবারের হাতে ১০ হাজার টাকা করে তুলে দেয়া হচ্ছে। একমাত্র আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় ছিল বলে এতকিছু সম্ভব হয়েছে। তিনি বিএনপির কঠোর সমালোচনা করে বলেন, ‘এই দলের নেতাকর্মীরা সমালোচনার কোন সুযোগ না পেয়ে প্রতিদিনই আবল তাবল বলে যাচ্ছে। এত ত্রাণ বিতরণের পরও তাদের চোখে সরকার বা আওয়ামী লীগের তৎপরতা চোখে পড়ছেনা। জনগণের জন্য ভালোবাসা নেই বলেই আমাদের তৎপরতা তারা দেখছেনা। তারা কেবল যেকোন উপায়ে ক্ষমতায় যাওয়ার লোভে উন্মত্ত হয়ে আছে। তবে তাদের সেই দিবাস্বপ্ন কেবল স্বপ্ন হয়েই থাকবে। মানুষ এই দুর্ণীতিবাজদের প্রত্যাখ্যান করেছে।’
নানক আরও বলেন, ‘খারাপ আবহাওয়া উপেক্ষা করে বন্যার শুরুতেই প্রধানমন্ত্রী সিলেট ও সুনামগঞ্জে ছুটে এসেছিলেন। তিনি বন্যার্তদের জন্য প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। শুধু সরকারি উদ্যোগেই নয়, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যুবলীগ এবং অন্যান্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরাও প্রধানমন্ত্রী নির্দেশে বন্যা মোকাবেলায় ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। এখনো প্রতিদিনই তারা বানভাসি মানুষের পাশে ছুটে যাচ্ছেন। খাবার খাইয়ে দিচ্ছেন, নগদ অর্থ বিতরণ করছেন। আমরা লুটপাটের রাজনীতিতে বিশ্বাসী নই। তাই কোটি কোটি টাকার ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হলেও কোথাও কেউ কোন ধরনের লুটপাটের অভিযোগ তুলতে পারেনি।’ সিলেটবাসীকে আশ্বস্ত করে তিনি বলেন, ‘জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা আপনাদের পাশে আছেন। পাশে আছে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। ইনশাল্লাহ সবার সম্মিলিত চেষ্টায় আমরা এ পরিস্থিতি থেকে অবশ্যই মুক্ত হবো।’ নানক সিলেটের প্রবাসীসহ যেসব সংগঠন বন্যার্তদের সাহায্য সহযোগিতায় এগিয়ে এসেছে, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। এসময় তার সাথে ছিলেন বাংলাদেশ আওযামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী এবং সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ অন্যান্য অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ