রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ০৬:৪৬ পূর্বাহ্ন

স্বামী পলাতক! স্ত্রী সন্তান নিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন বিচারের আশায়!

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : জুন ২৫, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদক
পুরো নাম নার্গিস আক্তার। পেশায় গৃহিনী। গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর উপজেলার হায়দাবাদ গ্রামে।তার পিতার নাম রকিব উদ্দিন। সুরির চালা ,ডাকঘর এবাদত নগর,উপজেলা :সখীপুর, টাঙ্গাইল, মোতাহের হোসেনের পুত্র ইউসুফ আলী(৩৮) নামে এক ছেলের সঙ্গে তার বিয়ে হয় ২০১৩ সালের ২৭ ডিসেম্বর।
এর মধ্যে পেরিয়ে গেছে দশটি বছর। তাদের সংসারে কোলজুড়ে আসে তাদের এক মাত্র পুত্র সন্তান। সব কিছু ভালোই চলছিল। কিন্তু হঠাৎ করেই নার্গিস এর পরিবারে নেমে আসে অশান্তির আগুন। কোন কথা নাই বার্তা নাই ইউসুফ আলী জানায় সে নার্গিস এর ঘর করবে না। তার যৌতুক চাই। যৌতুকের দাবিতে নার্গিসকে করা হতো সীমাহীন নির্যাতন।
এ নিয়ে শুরু হয় নার্গিস এর নির্যাতন মারধর। তাতেও কাজ না হওয়াই ২০১৮সালের জানুয়ারীতে ইউসুফ আলী নার্গিসকে তালাক নোটিশ দেন।যদিও তালাক কার্যকর হয়নি এখনও। মধ্যস্থতার আশায় আটকে আছে তালাক নোটিশ।
ইউসুফ এই কয়েক বছরে কোন ধরনের ভরণপোষন দেননি নার্গিসকে। এমনকি তাদের এক মাত্র পুত্রেরও কোন খরচ বহন করেননি ইউসুফ। পরে বাধ্য হয়ে স্বামীর সন্তান করতে চায় মর্মে এলাকায় সালিশ জমানো হয়। কিন্তু তাতেও মন গলেনি ইউসুফ এর। বাধ্য হয়ে আদালতে নারী নির্যাতন মামলা করেন নার্গিস। নার্গিস চান ইউসুফের সঙ্গে সংসার করতে। কিন্তু মামলা হওয়ার পর বিদেশে পালিয়ে গেছে স্বামী ইউসুফ।
তাদের এক মাত্র ছেলের দিকে তালিয়ে সংসার করার ভাবনা থেকেই নার্গিস আদালতের দ¦ারস্থ হলেও কোন সুফল পাচ্ছেন না। পরে কাউকে কিছু না জানিয়ে নার্গিস এর স্বামী ইউসুফ বিদেশে পাড়ি জমায়। এদিকে ছেলে সন্তানকে নিয়ে কঠিন অবস্থায় দিন পার করছে নার্গিস বেগম। এ বিষয়ে নার্গিস বেগম বলেন আমি ন্যায় বিচার চাই। আমি সংসার করতে চাই। এজন্য নার্গিস সবার সহযোগিতা চেয়েছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ