শনিবার, ০২ মার্চ ২০২৪, ১০:৩৮ পূর্বাহ্ন

সিরিয়ার আন্তঃসীমান্ত উন্মুক্ত রাখায় রাশিয়ার উপর আন্তর্জাতিক চাপ

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : জুন ২৪, ২০২১
সিরিয়ার আন্তঃসীমান্ত উন্মুক্ত রাখায় রাশিয়ার উপর আন্তর্জাতিক চাপ

জাতিসংঘ ও কয়েকটি মুষ্টিমেয় দেশ বুধবার সিরিয়ার বিদ্রোহী ইদলিব অঞ্চলে মানবিক সহায়তা পৌঁছে দেয়ার একমাত্র সীমান্তে প্রবেশাধিকারের অনুমোদন বহাল রাখার জন্য রাশিয়ার উপর চাপ দিয়েছে।” খবর এএফপি’র।
মঙ্গলবার আনুমানিক ৩০ টি দেশ জাতিসংঘ প্রধান ও নিরাপত্তা পরিষদকে দেওয়া এক চিঠিতে আরেক বছরের জন্যে এই আন্তঃসীমান্তে প্রবেশ পথ উন্মুক্ত রাখার আহ্বান জানিয়েছে। সংশ্লিষ্ট দেশগুলো তাদের চিঠিতে আন্তঃসীমান্তের এই প্রবেশ প্রক্রিয়া বন্ধ করে দেয়া হলে লক্ষ লক্ষ সিরিয়’র উপর ভয়াবহ প্রভাব ফেলবে উল্লেখ করে বলেছে, ‘আন্তঃসীমান্ত প্রক্রিয়াটির নবায়ন সমগ্র সিরিয়ার নাগরিকদের সরাসরি এবং অব্যাহত ভ্যাকসিন বিতরণ নিশ্চিত করার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।’
সেক্রেটারি-জেনারেল আন্তোনিও গুতেরেস নিরাপত্তা পরিষদ বলেছেন, ‘আমি পরিষদের সদস্যদের শক্তিশালী চ্যানেল হিসেবে আন্তঃসীমান্ত কার্যক্রমকে আরও এক বছরের জন্য অনুমতি দেওয়ার বিষয়ে সমর্থন প্রদানে ঐক্যমতে পৌঁছানোর আহ্বান জানাই। তিনি বলেন, ‘পরিষদ অনুমোদন সম্প্রসারণে ব্যর্থ হওয়ার পরিণতি হবে ভয়াবহ। সিরিয়ার জনগণের তীব্র চাহিদা মোকাবিলায় সমস্ত চ্যানেল বরাবর আমাদের সামগ্রিক সক্ষমতা অনুযায়ী সহায়তা পৌঁছানো অপরিহার্য।’
বছরের শুরুতেই সিরিয়ার মিত্র রাশিয়া সীমান্ত অতিক্রমের অনুমোদন আরো সম্প্রসারণের ব্যাপারে তার বিরোধিতার বিষয়টি স্পষ্ট করে দেয়। কিছুসংখ্যক কূটনীতিকের মতে, এ বিষয়ে রাশিয়া ভেটো প্রয়োগ করতে পারে।
এদিকে নিরাপত্তা পরিষদের দু’টি অস্থায়ী সদস্য রাষ্ট্র আয়ারল্যান্ড ও নরওয়ের ১০ জুলাই জাতিসংঘের অনুমোদনের মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই ভোট নেওয়ার প্রয়োজনীয়তার উপরে একটি খসড়া প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা শুরু করেছে।
ইদলিব অঞ্চলে বসবাসকারী ৩০ থেকে ৪০ লাখের মতো মানুষের কাছে মানবিক সহায়তা পৌঁছানোয় আন্তঃসীমান্তে প্রবেশাধিকারের অনুমতি রয়েছে, তবে রাশিয়ার মতে, দামেস্ক থেকে সীমান্ত অতিক্রমের একটি বিকল্প প্রবেশ পথ রয়েছে। তবে জাতিসংঘ ও পশ্চিমারা এর বিরোধিতা করে বলেছে যে, আমলাতন্ত্র ও রাজনীতি এই পথ দিয়ে মানবিক সহায়তা সরবরাহকে নিষ্ক্রিয় করে দেয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ