সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৪৯ অপরাহ্ন

সারা দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপন

রিপোর্টারের নাম :
আপডেট : জুলাই ১০, ২০২২
সারা দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদ্‌যাপন
দিনাজপুরের গোর-এ শহীদ ঈদগাহ মাঠে ৩ লাখ মুসল্লির অংশগ্রহণ

সারা দেশে যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য আর আনন্দ-উৎসাহের মধ্য দিয়ে উদ্‌যাপন করা হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। আজ রোববার ঈদের দিন সকালে নামাজ আদায় শেষে মুসল্লিরা দেশ, জাতি ও মুসলিম জাহানের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করেন। তারপর একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি করে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে আজ সকাল ৭টায় ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

করোনাভাইরাসের মহামারিজনিত ভিন্ন পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বায়তুল মোকাররমে ঈদের নামাজে অংশ নেন সর্বস্তরের মানুষ। করোনার এ সময়ে মসজিদে প্রবেশে ছিল পুলিশি কড়াকড়ি। মাস্ক পরিধান এবং হ্যান্ডস্যানিটাইজার দিয়ে জীবাণুনাশ নিশ্চিত করে মুসুল্লিদের মসজিদে প্রবেশ করানো হয়। জাতীয় মসজিদে অনুষ্ঠিত হওয়া এ ঈদ জামাতে ইমামতি করেন বায়তুল মোকাররমের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।

সব ভেদাভেদ ভুলে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মুসুল্লিরা ঈদের জামাতে নামাজ আদায় করেছেন। খুতবা শেষে মোনাজাতে দেশ ও বিশ্বের মুসলমানের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনায় দোয়া করা হয়। এরপর এক ঘণ্টা বিরতি দিয়ে বায়তুল মোকাররমে অনুষ্ঠিত হয় আরও চারটি ঈদের জামাত।

ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে রাজধানীর হাইকোর্টসংলগ্ন জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে। জামাত শুরু হয় সকাল ৮টায়। এতে সরকারের মন্ত্রী, ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের মেয়র, সংসদ সদস্য, রাজনৈতিক নেতা, সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা, বিভিন্ন মুসলিম দেশের কূটনীতিকদের অনেকে এবং সর্বস্তরের জনগণ জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের নামাজ আদায় করেন।

জাতিয় ঈদগাহের জামাতে ইমামতি করেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের খতিব হাফেজ মাওলানা মুফতি রুহুল আমিন। নামাজ শেষে দেশের অব্যাহত শান্তি ও উন্নয়ন, জনগণের কল্যাণ এবং মুসলিম উম্মাহর বৃহত্তর ঐক্য কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

বতর্মান করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের জারি করা বিজ্ঞপ্তি অনুসরণ করে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ আদায়ের জন্য মসজিদের খতিব-ইমাম, ধর্মপ্রাণ মুসল্লি ও সংশিষ্ট সবাইকে অনুরোধ করা হয়।

আমাদের প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

দিনাজপুর : আয়তনের দিক দিয়ে এশিয়া উপমহাদেশের মধ্যে সবচেয়ে বড় ঈদগাহ ময়দান দিনাজপুর গোর-এ শহীদে একসঙ্গে ৩ লাখ মুসল্লি ঈদের নামাজ আদায় করেছেন। রোববার (১০ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত জামাতে ইমামতি করেন মাওলানা শামসুল হক কাসেমী।

ঈদের নামাজের আগে থেকেই ময়দানের ১৯টি প্রবেশপথ দিয়ে মুসল্লিরা আসতে শুরু করেন গোর-এ শহীদ ঈদগাহ মাঠে। কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে তাদেরকে মাঠে প্রবেশ করানো হয়। এছাড়াও মাঠটি সার্বক্ষণিক সিসি ক্যামেরা ও ওয়াচ টাওয়ার দ্বারা পর্যবেক্ষণ করা হয়। দিনাজপুর জেলার ১৩টি উপজেলাসহ আশেপাশের জেলাগুলো থেকে এখানে মুসল্লিরা অংশগ্রহণ করেন।

নামাজে অংশগ্রহণ করেন বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম, জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপারসহ বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তিবর্গ। নামাজ শেষে মাঠের উদ্যোক্তা ও প্রধান পরিকল্পনাকারী জানান, এখানে প্রায় ৩ লাখ মুসল্লির সমাগম হয়েছিল। যদিও আশা ছিল ৫ লাখ মুসল্লির।

২০১৫ সালে এশিয়া উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় ঈদগাহ মিনার নির্মাণের কাজ শুরু করা হয়। ২০১৭ সাল থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত ৬টি ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। করোনার কারণে ২০২১ ও ২০২০ সালে এই মাঠে নামাজ আদায় হয়নি। এরপর গত ঈদুল ফিতরে নামাজ আদায় করেন ৬ লাখ মুসল্লি।

খুলনা : খুলনা সার্কিট হাউস ময়দানে আজ সকাল ৮টায় ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ ঈদ জামাতে ইমামতি করেন টাউন জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মো. আবু সালেহ।

খুলনা সিটি করপোরেশনের ব্যবস্থাপনায় ঈদ জামাতে মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ হারুনুর রশিদ, বিএনপির সাবেক কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ মনিরুজ্জামান তালুকদার, প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ সাধারণ মুসল্লিরা অংশগ্রহণ করেন।

এ ছাড়া বাইতুন নুর জামে মসজিদ, আলীয়া মাদ্রসা, নুর নগর জামে মসজিদসহ ৩১টি ওয়ার্ডে বিভিন্ন মসজিদ এবং ঈদগাহে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

চট্টগ্রাম : সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সকাল ৭টা ৪৫ মিনিটে প্রথম জামাত ও একই স্থানে সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে ঈদের দ্বিতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

জেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় এম এ আজিজ স্টেডিয়াম-সংলগ্ন জিমনেশিয়াম মাঠে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। নগরীর লালদীঘি শাহী জামে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল সাড়ে ৭টায়। এ ছাড়া নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডে একটি করে প্রধান জামাতের পাশাপাশি চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের তত্ত্বাবধানে নগরীতে আরও আটটি বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

প্রথম ও প্রধান জামাতে ইমামতি করেন জমিয়াতুল ফালাহ মসজিদের খতিব সৈয়দ আবু তালেব মো. আলাউদ্দিন আল কাদেরী। এসব জামাতে শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মীর মো. নাসির উদ্দীন, সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন অংশ নেন।

শিক্ষা উপমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘পৃথিবীর সব দেশে জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে, খাদ্যের মূল্য বেড়েছে। এবারের ঈদে মহান রাব্বুল আল-আমিনের কাছে দোয়া করেছি, যারা নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে, মানুষ কষ্ট পাচ্ছে, তাদের যেন আল্লাহ রহমত দেন। এ কষ্ট থেকে আমাদের যাতে মুক্তি দেয়। এ যুদ্ধের যেন অবসান হয়। আর, কোরবানিতে যে চামড়া উৎপাদন হবে, সেগুলো যাতে ভালোভাবে সংরক্ষণ করা হয়। আমরা বিদেশে রপ্তানির মাধ্যমে বৈদেশিক মুদ্রা আয় করে জ্বালানি তেল ক্রয় করি। জ্বালানি তেলের মূল্য বেড়েছে, তাই বৈদেশিক মুদ্রার বেশি প্রয়োজন। তাই, আমাদের চামড়া সংরক্ষণে আন্তরিক হতে হবে। আর, বন্যায় অনেক মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যাঁরা সামর্থ্যবান, তাঁরা যাতে অসহায়দের সাহায্য করেন।’ নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডের দুইশর বেশি মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। পরে নগরীর বিভিন্ন স্থানে পশু জবাই করা হয়।

বরিশাল : দেশ ও জাতির অগ্রগতি এবং মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনায় দোয়া-মোনাজাতের মধ্য দিয়ে বরিশালের মসজিদে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সকাল ৭টায় বরিশাল নগরীর বান্দরোডের হেমায়েত উদ্দিন কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

ঈদের প্রধান জামাতে প্রতিবছরের মতো বরিশালের বিভিন্ন আসনের বর্তমান ও সাবেক সংসদ সদস্য, সিটি মেয়র, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসকসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা, বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক ও সুশীল সমাজের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সকাল ৭টা থেকে সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত জেলার বেশির ভাগ মসজিদে জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। কয়েকটি মসজিদে দুটি করে জামাত হয়েছে।

কুষ্টিয়া : বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে কুষ্টিয়ার ছয়টি উপজেলার ১৩০টি ঈদগাহ ও মসজিদে পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সকাল সাড়ে ৭টায় কুষ্টিয়া কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে ঈদুল আজহার প্রথম নামাজে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি, কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, প্রশাসনিক কর্মকর্তা, বিভিন্ন পেশাজীবী মানুষসহ প্রায় ১০ হাজার ধর্মপ্রাণ মুসুল্লি অংশগ্রহণ করেন।

নামাজ শেষে দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনায় দোয়া করা হয়। এরপর মুসল্লিদের সঙ্গে কুশল বিনিময়ের পাশাপাশি দেশবাসীকে পবিত্র ঈদুল আজহার শুভেচ্ছা জানিয়ে হানিফ বলেন, ঈদুল আজহার ত্যাগের মহিমায় দেশ আরও এগিয়ে যাবে।

এদিকে, পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষ্যে জেলার প্রতিটি ঈদগাহ ও মসজিদকে নানা সাজ-সজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে। ঈদের নামাজের পর ত্যাগের মহিমায় উজ্জীবিত হয়ে মুসল্লিরা পশু কোরবানি দেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় যথাযথ ধর্মীয় ভাব-গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র ঈদুল আজহার নামাজ আদায় করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। আজ রোববার সকাল ৮টায় শহরের কাজীপাড়ায় ঈদগাহ ময়দানে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এতে স্থানীয় সংসদ সদস্য র আ ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মো. শাহগীর আলম, ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি রিয়াজউদ্দিন জামিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠনের নেতা এবং নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন। পরে দেশ, জাতি ও বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। নামাজে ইমামতি ও দোয়া পরিচালনা করেন মাওলানা হাদীয়াতুল্লাহ নূর।

এ ছাড়া সদর হাসপাতাল মসজিদ ও টেংকের পাড় জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, শেরপুর মসজিদে সোয়া ৮টায়, ভাদুঘর শাহী মসজিদে ৯টায়সহ বিভিন্ন ঈদগাহ মাঠে ও মসজিদে মসজিদে সকাল ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরে মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি কামনায় পশু কোরবানি দেওয়া হয়।

গোপালগঞ্জ : দেশ ও জাতির মঙ্গল এবং বৈশ্বিক মহামারি নভেল করোনাভাইরাস থেকে মুক্তিলাভ কামনা করে গোপালগঞ্জে ব্যতিক্রমী নকশা ও আধুনিক স্থাপত্য শৈলীতে নির্মিত কেন্দ্রীয় পৌর ঈদগাহ ময়দানে পবিত্র ঈদুল আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ রোববার সকাল সাড়ে ৭টায় কেন্দ্রীয় পৌর ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত ঈদের প্রধান জামাতে ইমামতি করেন কেন্দ্রীয় কোর্ট মসজিদের ইমাম মাওলানা শেখ হাফিজুর রহমান। এ ঈদগাহে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, নবনির্বাচিত পৌর মেয়র, আওয়ামী লীগের নেতারাসহ প্রায় ৩০ হাজার মুসল্লি একসঙ্গে ঈদের নামাজ আদায় করেন।

এ বছর জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার উদ্যোগে ধর্মীয় নিয়ম-কানুন মেনে নামাজ আদায় করেন নারীরাও। এরপর সকাল ৮টায় থানাপাড়া জামে মসজিদে দ্বিতীয় এবং সকাল সাড়ে ৮টায় গোপালগঞ্জ ছালেহিয়া আলিয়া মাদ্রাসা জামে মসজিদে তৃতীয় জামাত অনুষ্ঠিত হয়। জামাত শেষে একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি ও ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন শিশুসহ নানা বয়সের মানুষ। এ ছাড়া জেলার বিভিন্ন মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদ জামাতকে কেন্দ্র জেলায় নেওয়া হয় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

চাঁদপুর : যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাব-গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে উদ্‌যাপন করা হচ্ছে পবিত্র ঈদুল আজহা। আজ সকালে চাঁদপুর স্টেডিয়ামসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে ঈদের নামাজ আদায় করেছেন ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। রৌদ্রোজ্জ্বল দিনে সবুজ ঘা‌সে স‌জ্জিত খোলা ময়দা‌নে সব বয়সি ক‌য়েক হাজার মুসল্লি এ জামা‌তে অংশ নি‌য়ে ঈ‌দের নামাজ আদায় ক‌রেন। এ সময় স্রষ্টার ক্ষমা, অনুগ্রহ এবং দেশের শান্তি-সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করা হয়।

ঈদের প্রধান জামাত সকাল ৭টায় চাঁদপুর পৌর ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা প্রশাসন, পৌরসভা, রাজনৈতিক, সাংবাদিকসহ ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা অংশগ্রহণ করে। এ ছাড়া সকাল সাড়ে ৭টায় বড় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয় চাঁদপুর স্টেডিয়ামে। এতে ইমামতি করেন ফরিদগঞ্জ ফনিসাইর দারুচ্ছুন্নাত ছালেহীন মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মুফতি মো. মুশিউর রহমান।

ঈদের নামাজে অংশ নেন চাঁদপুর জেলা ও দায়রা জজ এস এম জিয়াউর রহমান, জেলা আইনজীবী স‌মি‌তির সভাপ‌তি কামাল উদ্দিন আহ‌মেদ, ম‌ডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুর র‌শিদ, আউটার স্টে‌ডিয়াম ঈদ জামাত ক‌মিটির সভাপ‌তি অ‌্যাড‌ভোকেট সে‌লিম আকবর, সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান পাটওয়ারী, উপ‌দেষ্টা আব্দুর র‌শিদ সর্দার, সহ সভাপ‌তি আব্দুর র‌শিদ মাষ্টার, যুগ্ম সম্পাদক মাহমুদ আহ‌মেদ মিঠু, গোলাম মুর্তজা চৌধুরী, অ‌্যাড‌ভোকেট আকতার সরকার, সাংগঠ‌নিক সম্পাদক মিজান লিটন, প্রচার সম্পাদক শরীফ সরকার, সহ-প্রচার সম্পাদক আব্দুর রহমান, সদস‌্য ছানাউল্লাসহ ক‌য়েক হাজার মুসল্ল‌ি।

দেশ, জাতি ও মুসলিম উম্মাহর সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করা হয়। নামাজ শেষে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা কোলাকুলির পাশাপাশি ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

ময়মনসিংহ : ধর্মীয় ভাব-গাম্ভীর্যের মধ্য দিয়ে ময়মনসিংহের বিভিন্ন মসজিদ ও মাঠে ঈদুল আজহার জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ রোববার সকাল ৮টায় ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয় কেন্দ্রীয় আঞ্জুমান ঈদগাহ ময়দানে। জামাতে অংশগ্রহণ করেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এমপি, বিভাগীয় কমিশনার শফিকুর রেজা বিশ্বাস, জেলা প্রশাসক এনামুল হকসহ ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা।

নামাজ শেষে দেশ ও জাতির শান্তি-সমৃদ্ধ কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন ইমাম মোস্তুফা সারোয়ার।

এ ছাড়া শহরের বড় মসজিদ, আকুয়া মার্কাজ মসজিদ, চরপাড়া জামিয়া ইসলামিয়া, সেনানিবাস জামে মসজিদ, পুলিশ লাইন্‌স জামে মসজিদ, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় জামে মসজিদসহ জেলার দুই হাজারের বেশি স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

অন্যান্য সংবাদ